প্রবন্ধঃ আজব রীতি রেওয়াজ - কমলবিকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়

আজব রীতি-রেওয়াজ
কমলবিকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়


এক দেশের রীতি-রেওয়াজের সঙ্গে আরেক দেশের রীতি-রেওয়াজ অধিকাংশ সময়েই মেলে না। দেশকাল ভেদে তা পাল্টে পাল্টে যায়। এক দেশের মানুষের কাছে যে রীতি-রেওয়াজ স্বাভাবিক অন্য দেশের মানুষের কাছে সেটাই হয়তো অদ্ভুত।

ক্যামেরনঃ আত্মীয়স্বজন বা পরিচিত কারও বাড়িতে গেলে মিষ্টি বা কোনও খাদ্যবস্তু নিয়ে যাবার রেওয়াজ আমাদের মধ্যে আছে। আফ্রিকার ক্যামেরনের মানুষেরা এটা ভাবতেই পারে না। সেখানে কারও বাড়িতে কোনও খাদ্যদ্রব্য নিয়ে যাওয়ার অর্থ হল সেই বাড়ির গৃহকর্ত্রী রান্না করতে জানে না। এটা বাড়ির গিন্নির কাছে অপমানসূচক বিষয়। তাই ক্যামেরনে গেলে কখনওই কারও বাড়িতে কোনও খাবার জিনিস নিয়ে যাওয়া উচিত নয়। এতে তাঁর সঙ্গে হয়তো সম্পর্কই ছিন্ন হয়ে যেতে পারে।




জাপানঃ আমাদের দেশের রীতি হল, কোনও বক্তা যখন কিছু বলে তখন শ্রোতারা শোনার সময় চোখদুটো খোলা রাখে। যদি সে চোখ বুজে থাকে তাহলে বক্তার মনে হতে পারে যে তার কথা শ্রোতা বা শ্রোতারা শুনছে না। জাপানে কিন্তু ঠিক উল্টো ব্যাপার। সেখানে শ্রোতারা যদি চোখ খোলা রাখে তাহলে বক্তা বেজায় চটে যায়। বক্তার কথা মন দিয়ে শুনছে প্রমাণ করতে গেলে শ্রোতাকে চোখ বুজে থাকতে হবে।



চিনঃ ঠান্ডা লেগে যদি সর্দি হয় আর সেই সময় যদি চিন দেশে বেড়াতে যান তাহলে সাবধান। খেতে বসে যদি হাঁচি পায় তাহলে পকেট থেকে রুমাল বের করে নাকেমুখে চাপা দিয়ে হাঁচার চেষ্টা করবেন না। কারণ, এটা ওদেশের লোকেরা পছন্দ করে না। উঠে বাথরুমে চলে যাওয়াই সে দেশের রীতিনীতি। হাঁচি কমে গেলে টেবিলে ফিরে এসে আবার খেতে বসুন। উপহার দেওয়া নেওয়ার ক্ষেত্রে এ দেশের লোকেরা যত না ফুল পছন্দ করে তার চেয়ে অনেক বেশি পছন্দ করে একবাক্স চকোলেট। কেননা, মৃতের উদ্দেশ্যে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতে এরা বেশি পছন্দ করে।


স্পেনঃ আমাদের দেশে খেতে খেতে গল্প করা স্বাভাবিক ব্যাপার। স্পেন দেশে এমন ঘটনা কোথাও দেখতে পাওয়া যায় না। সে দেশে খাবার সময় নীরবতা পালনই রীতি।




       মেক্সিকোঃ মেক্সিকোবাসীদের কখনও লাল গোলাপ উপহার দিতে যাবেন না। কারণ, শুধমাত্র মৃতের সমাধিতে লাল গোলাপ দেওয়া এদেশের রীতি। অন্য রঙের গোলাপ, বিশেষ করে সাদা গোলাপ দেওয়া যেতে পারে।

আরবঃ ‘দুটো কিনলে একটা ফ্রী’ এমন বিজ্ঞাপন আজকাল হরদম চোখে পড়ে। বিক্রেতা ও ক্রেতাদের মধ্যে ফ্রী দেওয়া নেওয়া নিয়ে প্রায় সারাবছরই হুড়োহুড়ি লেগে থাকে। তবে কিছু না কিনলে কিন্তু আমাদের দেশে ফ্রী পাওয়া যায় না। সেটা পাওয়া যেতে পারে আরবদেশে গেলে। বেশ অদ্ভুত শোনাচ্ছে, তাই না? হ্যাঁ, সে দেশে এক আজব রীতি আছে। কারও বাড়িতে অতিথি হয়ে গিয়ে সে বাড়ির সাজসজ্জা বা সুন্দর দেখতে কোনও আসবাবের প্রশংসা করলেই গৃহকর্তা সেটা অতিথিকে উপহারস্বরূপ দিয়ে দেন।


রাশিয়াঃ রাশিয়াতে শিস দিয়ে গান করাটা অমঙ্গলসূচক। সে দেশের লোকেরা মনে করে শিস দিয়ে গাওয়া গান বাতাসে ভাসতে ভাসতে যাদের বাড়িতে ঢুকবে তাদের সব সম্পদ হারিয়ে যাবে। তাই সে দেশের কেউই শিস দিয়ে গান করে না। এদেশে আরও একটা আজব রীতি আছে। এখানে কেউ কাউকে ছুরি উপহার দেয় না। এই ধরনের উপহার দেওয়ার অর্থ দু’জনের মধ্যে সম্পর্ক শেষ।


শুধু আমাদের দেশেই নয়, দেশে দেশে নানা সংস্কার একবিংশ শতাব্দীতেও বিদ্যমান।
_____


ছবিঃ আন্তর্জাল

2 comments:

  1. বেশ মজাদার সব কটাই। তবে স্পেনের রেওয়াজ টা বেশ যুক্তিসংগত মনে হল। সুস্বাস্থ্য অর্জনের জন্য। আর আরবে একবার যেতেই হবে এটা পড়ে মনে হল।

    ReplyDelete
  2. বাহ, অনেক নতুন কিছু জানলাম

    ReplyDelete