ছড়াঃ বুধনধোপার গাধা - মধুমিতা ভট্টাচার্য



বুধনধোপার গাধা
মধুমিতা ভট্টাচার্য


বুধনধোপার গাধা
সকাল বিকেল নিয়ম করে গলাটি চাই সাধা
সারে গামা পাধা।

শালুকদিঘীর জলে
বুধন ধোপা কাপড় কাচে রোজ সক্কাল হলে
হেঁইয়ো মারি বলে।

পাকুড়গাছের তলে
ছায়ায় খানিক জিরিয়ে গাধা হাঁকেন ‘ঘ্যাঁক্কো’ বলে
মেঘলা আকাশ হলে

গিটার নিয়ে হাতে
ওঠেন গিয়ে পোড়োবাড়ির রেলিং ভাঙা ছাতে
অমাবস্যার রাতে।

পুন্নিমাতে একা
তিন পা তুলে তবলা ডুগির চাঁদিতে দেন ঠেকা
নিজের চোখে দেখা।

একাদশীর ভোরে
খোল-কত্তাল বাজান বসে ঘন্টা খানেক ধরে
ধাঁই-খচামচ করে।

তারপর একদিন...

শিমূলগাছের নিচে
গান ধরেছেন যেই না গাধু উচ্চৈঃস্বর খিঁচে
তক্ষুনি এক বিছে,

হুল ফোটাল পিছে
চিল্লে বলেন “ও বাবা গো, এমন কামড় দিছে
প্রাণ বেরিয়ে গিছে।”

“শেষ গানটা গেয়ে
এবার হব সগ্‌গোবাসী দেখবি তোরা চেয়ে,”
বল্লেন চারপেয়ে।

রেগে আগুন শুনে
বুধন বলে, “দাঁড়া তোকে দিচ্ছি তুলো ধুনে
বাহান্ন বার গুনে।”

বুধনধোপার গাধা
পালায় ছুটে, উঠল মাথায় গানের গলা সাধা
সাগা রেমা গাধা।
_____
অলঙ্করণঃ সুজাতা চ্যাটার্জী

4 comments:

  1. সুজাতাকে অনেক ধন্যবাদ এত মজাদার ছবির জন্য। নাহলে এ ছড়ার অর্ধেকই মাটি হোত।

    ReplyDelete
    Replies
    1. This comment has been removed by the author.

      Delete
    2. Chobi bhalo legeche jene khub anondo pelam. Onek dhonyobad...choratao darun :)

      Delete
  2. বাহ, বেশ ভালো লাগলো

    ReplyDelete