ছড়াঃ কুসংস্কারের বিরুদ্ধে - সনৎ বসু


কুসংস্কারের বিরুদ্ধে

সনৎ বসু


মাটির দাওয়ায় খেলছে খোকা
দিচ্ছে কেমন হামা,
মুখের ভেতর মাটির ডেলা
গায়ে রঙিন জামা৷
খেলছে খোকা খেলছে,
খেলতে খেলতে দুপা দিয়ে
ঘুঁটের ঝুড়ি ঠেলছে৷
হঠাৎ বিকট চিৎকার,
আছাড়-পিছাড় গড়ায় শিশু
মা দেয় কাকে ধিক্কার!
“কাঁকড়াবিছে, কাঁকড়াবিছে,”
বলেই মাতা ছুটল,
ছুট্টে গিয়ে ওঝার পায়ে
ছেলের মাথা কুটল৷
মন্ত্র পড়ে ওঝা,
তেল-সিঁদুর আর পান-সুপারি
ক্ষতস্থানে গোঁজা৷
তাবিজ বাঁধে ওঝা,
দু’চোখ বুজে ঘুমায় শিশু
যায় না কিছু বোঝা৷
দু’ঘন্টা পার, খোকার যখন
সারা শরীর কাঁপছে,
হাত-পা শীতল
নাকের ফুটোয় গ্যাঁজলা এসে ঢাকছে
হাসপাতালে হামলে পড়ে
ওদুলচোয়া গ্রামটা,
কিন্তু যে হায়, সময় পালায়,
স্তব্ধ খোকার প্রাণটা৷
অ়জ্ঞতা আর অশিক্ষাতে
কতই জীবন ঝরছে
মায়ের ভুলে, বাবার ভুলে
শিশুরা সব মরছে৷
তাবিজ-কবচ ঝাড়ফুঁকেতে
অন্ধকারের রাস্তা,
বিজ্ঞানে আর যুক্তিবাদে
ফিরুক সবার আস্থা৷
অসুখ হলেই হাসপাতালে
ওঝা গুণিন আর না,
বলছে খোকার নিথর শরীর
‘কুসংস্কারের বাড় না’৷
_____

অলঙ্করণঃ চিত্রনিভা দাশ

No comments:

Post a Comment