ছড়াঃ বঙ্কুমামার লিমেরিক - সনৎ কুমার ব্যানার্জ্জী


বঙ্কুমামার লিমেরিক

সনৎ কুমার ব্যানার্জ্জী


মোগলসরাই ইষ্টিশনে যেমনি গাড়ি থামে,
সামলে ধুতি লম্ফ দিয়ে বঙ্কুমামা নামে।
সামনে দেখে ইডলি ধোসা,
দেখতে না পায় কলার খোসা -
এর পরেতে কী যে হল ভেবেই কপাল ঘামে।

আছড়ে পড়ে ঠ্যাংটি ভেঙে বঙ্কুমামা কাত,
কোথায় গেল হম্বিতম্বি লম্বাচওড়া বাত।
কাঁধে করে দুই মাতালে -
নিয়ে গেল হাসপাতালে,
কাঁধের থেকে ছিটকে পড়ে ভাঙল এবার দাঁত।

দাঁত ভেঙেছে কী হয়েছে? মাংস খাবে বলে,
রেস্তোরাঁতে বঙ্কুমামা ঢুকল সদলবলে।
মামা শুধু মাংস খেল,
মাতালরা ঝোল আলু পেল -
মাংসের ঝোল বাড়িয়ে নিল মিশিয়ে নিয়ে জলে।

মাংস খেতে গিয়ে মামার দাঁতটি গেল পেটে,
ঝোল যা ছিল মাতালদুটো সবই নিল চেটে।
মামার থেকে পয়সা নিয়ে,
দুইজনেতে দোকান গিয়ে -
আনল কিনে কিলোখানেক দুম্বাখাসির মেটে।

ট্রেন ছাড়ল মোগলসরাই মামাকে বাদ দিয়ে,
মাতালদুটো ফিরে এল নাপিত ধরে নিয়ে।
কোথায় মামা? স্টেশন ফাঁকা,
মামা চড়ে মুটের ঝাঁকা -
দাঁত প্লাস্টার, ঠ্যাং বাঁধাল হাসপাতালে গিয়ে।
_____

অলঙ্করণঃ সুজাতা চ্যাটার্জী

No comments:

Post a Comment