ছড়াঃ হরিসাধনের পিসেঃ সুস্মিতা কুণ্ডু


হরিসাধনের পিসে

সুস্মিতা কুণ্ডু


নাকতলা থেকে বেলতলা যাবে
হরিসাধনের পিসে,
বাদুড়ঝোলা ভিড় বাসে চেপে
চেপটে গেল যে মিশে।

গরমের চোটে ভারি হাঁসফাঁস
গলদঘর্ম পিসে,
গলা শুকিয়ে কাঠ হয়ে গেল
তেষ্টা মিটবে কীসে?

পা’খানা জোরে মাড়িয়েছে কেউ
হুঙ্কার ছাড়ে পিসে,
“হতচ্ছাড়া, অলপ্পেয়ে,
বদের ধাড়ি কে সে?”

সারা বাস জুড়ে লোকজন সব
চুপটি করে থাকে,
হরিসাধনের পিসেমশাই
শুধুই হাঁকে ডাকে।

বাধল মহা হট্টগোলটি
ঠ্যালাঠেলি মারামারি,
সেই সুযোগে হাবুল চোর যে
করল পকেটমারি।

ঝগড়াঝাঁটি থামলে পরে
টিকিট কাটতে গিয়ে,
মানিব্যাগ খুঁজে পায় না পিসে
পকেটে হাতটি দিয়ে।

দ্বিগুণ রাগে ফুঁসে ওঠে পিসে
চ্যাঁচায়, “থামাও বাস!
কী কুক্ষণে বেরোলুম আজ
কপালে সর্বনাশ!

বেলতলা গিয়ে কাজ নেইকো
নাকতলাতেই থাকি,
বাস ভরে আছে চোর-গুণ্ডায়
প্রাণটাই যাবে ফাঁকি।”
_____

অঙ্কনশিল্পীঃ সুজাতা চ্যাটার্জী

1 comment:

  1. বাহ,ছড়ার উপযুক্ত ই হয়েছে ছবিটি।

    ReplyDelete