গল্প: তিরুবাবু ও টেঙ্কুবাবু: মানব

 

তিরুবাবু ও টেঙ্কুবাবু


মানব



জুন মাসের শেষ। ক’দিন ধরে বেশ গরম পড়তে শুরু করেছে। ঘরে থাকতে কারই-বা ভালো লাগে? বিকালবেলা তিরুবাবু মাথার চুল আঁচড়ালেন। লাল টি-শার্ট পরলেন। আয়নার সামনে গিয়ে দাঁড়ালেন। দিদির কালো মার্কার পেনটা খুঁজে বের করলেন। কালো মার্কারটা  দিয়ে নিজের ঠোঁটের উপর সরু গোঁফ আঁকলেন। ফ্রিজ খুলে পছন্দের সাদা টিফিন বাক্সটা বের করলেন। তারপর সেটা ছোটো রিকশায় তুলে বেরিয়ে পড়লেন রাস্তায়।

বার কতক টুং-টাং করে বেল বাজালেন। জোরে গলা তুলে হাঁক ছাড়লেন, “এই আইসক্রিম চাই… আইসক্রিম! ঠান্ডা আইসক্রিম... ভালো আইসক্রিম।”

রাস্তা একেবারে ফাঁকা। কেউ কোথাও নেই। তিরুবাবু ধীরে ধীরে রিকশা চালিয়ে পার্কের দিকে এগোলেন। কদমগাছের তলায় ছায়ায় গিয়ে থামলেন। পাঁচ মিনিট যায়, দশ মিনিট যায়, না, কেউ আসে না। তিরুবাবু বার বার হাতের ঘড়িটার দিকে তাকান। পনেরো মিনিট পরে হঠাৎ টেঙ্কুবাবুকে এদিকে আসতে দেখলেন। তিরুবাবু হাসিমুখে ফের গলা তুলে হাঁক ছাড়লেন, “এই আইসক্রিম চাই... আইসক্রিম! ঠান্ডা আইসক্রিম... ভালো আইসক্রিম।”

টেঙ্কুবাবু রিকশার সামনে এসে দাঁড়ালেন। তিরুবাবুকে জিজ্ঞেস করলেন, “আপনার আইসক্রিমের দাম কত?”

“কোনটা? কোণ আইসক্রিম, না বার আইসক্রিম?”

“কোণ আইসক্রিম কত?”

“দাম নেই। এমনি এমনি।”

“বার আইসক্রিম কত?”

“দাম নেই। এমনি এমনি।”

“তাহলে দুটো বার আইসক্রিমই দিন।”

“কোন ফ্লেভার? ভ্যানিলা, লেমন, নাকি চকলেট?”

“লেমনই দিন।”

তিরুবাবু সাদা টিফিন বাক্স খুলে দুটো লেমন আইসক্রিম টেঙ্কুবাবুর হাতে দিলেন। টেঙ্কুবাবু একটা নিজে নিলেন, অন্যটা তিরুবাবুকে দিলেন। তারপর দুজনে গিয়ে পার্কের বেঞ্চিতে বসলেন। মনের সুখে দুজনে পা দোলাতে লাগলেন আর আইসক্রিম চুষতে লাগলেন।


___



No comments:

Post a Comment